sristymultimedia.com

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১২ নভেম্বর ২০১৯, ২৮ কার্তিক ১৪২৬


ভারত সফরে ডাক পেলেন আল-আমিন ও আরাফাত সানি

১০:২৬এএম, ১৯ অক্টোবর ২০১৯

স্পোর্টস ডেস্ক : ভারতের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি দলে দীর্ঘ সময় পর অর্ন্তভূক্ত হয়েছেন পেসার আল আমিন ও স্পিনার আরাফাত সানি। তাদের দলে ডাক পাওয়া বেশ বিস্ময় জাগিয়েছে ক্রিকেট বিশ্লেষকদের।

তবে এই দল নিয়ে ভারতের বিপক্ষে জয় কঠিন হবে না বলেই বিশ্বাস তাদের। অন্যদিকে, দল গঠনে আগামীতে নির্বাচকদের সুনির্দিষ্ট লক্ষ্য থাকা উচিত বলে জানান তারা।

বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেন, নতুন প্লেয়ারের সন্ধান চলছে, অনেক এক্সপেরিমেন্ট হবে। এতোদিন জেতা জন্য সবকিছু ছিলো, জিততেই হবে। এখন কিন্তু আমরা এক্সপেরিমেন্ট করবো।

আপনারা ইতোমধ্যে কিছু এক্সপেরিমেন্ট দেখেছেন, অনেক কিছু হচ্ছে, আরও অনেক কিছু হবে। হবার কথা ছিলো এক, কিন্তু হয়েছে আরেক! বোর্ড প্রধানের প্রতিশ্রুতি ছিলো নতুনের পালে হাওয়া দেবেন। হাওয়া এসেছে ঠিকই। তবে তা পুরনো দু'জনের পালে।

ভারত সফরের আগে ঘোষিত দলটা চমকে ভরা। দীর্ঘ সময় পর দলে অর্ন্তভূক্ত হয়েছেন পেসার আল আমিন ও স্পিনার আরাফাত সানি। আর এতেই যতো জল্পনা-কল্পনা।

দলে জায়গা পাওয়া এই দুই ক্রিকেটার সবশেষ জাতীয় দলের হয়ে খেলেছেন ২০১৬ সালে। ঘরোয়া লিগের পারফরমেন্স যে খুব একটা আহামরী ছিলো তাও না।

তবে কোন জাদুর কাঠির পরশে দলে ফিরেছেন সেটিই বোধ্যগম্য নয় অনেক ক্রিকেট বিশ্লেষকের। এছাড়া অফ ফর্মে থাকা সৌম্য সরকারের গড়পরতা পারফরমেন্স দিয়ে দলে থাকা নিয়েও প্রশ্ন ওঠে।

এ ব্যাপার সিনিয়র ক্রীড়া সাংবাদিক নোমান মোহাম্মদ বলেন, এটা আমার জন্যে সারপ্রাইজিং, আমি নিশ্চিত আল আমিন ও আরাফাত সানির কাছেও সারপ্রাইজিং। সাম্প্রতিক সময়ে ঘরোয়া ক্রিকেটে তাদের কি ভালো পারফর্মেন্স রয়েছে?

যদি ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো পারফর্মে থাকতেন তাহলে কিন্তু আলোচনায় থাকতেন। সো এটা বাংলাদেশ ক্রিকেটের জন্যে এটা ভালো কোনো বার্তা বয়ে আনছে বলে আমার মনে হয় না।

সৌম্য সরকার বিশ্বকাপ থেকে শুরু করলে তার পারফর্মেন্স কিন্তু খুবই গড়পড়তায় ছিলো, সেই ফর্মের কারণেই তিনি বাদ পড়েছেন। এখন তিনি জাতীয় দলে ফিরলেন, কি ফর্ম দেখিয়ে তিনি ফিরলেন?

দল ঘোষণায় নির্বাচকদের ভূমিকা প্রত্যক্ষ। তবে খেলোয়াড় বাছাই প্রক্রিয়ায় বোর্ড প্রধান ও নির্বাচকদের সামঞ্জস্যতা কতোটুকু? সাম্যাবস্থা থাকুক কিংবা না থাকুক, ভবিষ্যতের কথা ভেবে বোর্ড প্রধান ও নির্বাচকদের একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা থাকা উচিত বলে মনে করেন এই জ্যেষ্ঠ ক্রীড়া সাংবাদিক।

নোমান মোহাম্মদ বলেন, যেহেতু টিম সিলেক্ট করে সিলেক্টররা সেহেতু তাদের ক্লিয়ার একটা ভিশন থাকা উচিত। চিন্তা ভাবনা যেনো জট পাকানো না হয়। ভারত সফরে যেহেতু যাচ্ছি, এখানে প্লেয়ারদের মেলে ধরার বড় মঞ্চ এটা।

তবে সব কথার শেষ কথা ভালো খেলা। ঘোষিত স্কোয়াডে যারা জায়গা পেয়েছেন ভারতের বিপক্ষে সেরাটা দিয়ে দলকে জেতানোর ক্ষমতা রাখেন। এমন আত্মবিশ্বাস থাকাটা যে ভুল নয়, তা হয়তো মাঠেই প্রমাণ হবে।

বিজনেস আওয়ার/১৯ অক্টোবর, ২০১৯/এ

উপরে