sristymultimedia.com

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ২৯ কার্তিক ১৪২৬


ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে চলে গেল জম্মু-কাশ্মীর

১১:৪১এএম, ৩১ অক্টোবর ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক : ভারত সংবিধানের ৩৭০ অনুচ্ছেদ তুলে নেয়ার মাধ্যমে গত ৫ আগস্ট জম্মু-কাশ্মীরের বিশেষ মর্যাদা বাতিলের ঘোষণা দেয়া হয়। প্রায় তিন মাস পর বৃহস্পতিবার (৩১ অক্টোবর) আনুষ্ঠানিকভাবেই দু'টি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে বিভক্ত হচ্ছে এই ভূস্বর্গ।

নতুন ঘোষণা অনুযায়ী জম্মু ও কাশ্মির একটি প্রশাসনিক কাঠামোতে চলবে, আর চীন সীমান্তবর্তী লাদাখে আরেকটি। তবে এই দুটি রাজ্যই সরাসরি ভারতের কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে থাকবে। কাশ্মির বিভক্তের ঘোষণার প্রায় তিন মাস পর তা কার্যকর হতে চলেছে।

৯৮ শতাংশ জনগণ জম্মু ও কাশ্মিরেই থাকছে। এর মধ্যে কাশ্মিরে মুসলিমরা সংখ্যাগরিষ্ঠ। তাদের জনসংখ্যা ৮০ লাখ। আর ৬০ লাখ জনসংখ্যার জম্মু হিন্দু সংখ্যাগরিষ্ঠ। অন্যদিকে লাদাখে জনসংখ্যা ৩ লাখ, যেখানে মুসলিম ও বৌদ্ধদের সংখ্যা প্রায় সমান।

কেন্দ্রীয় সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়, বৃহস্পতিবার গুজরাটের সাবেক আমলা গিরিশ চন্দ্র মুরমু কাশ্মির অঞ্চলের প্রথম গভর্নর হিসেবে শপথ নিতে যাচ্ছেন। লাদাখের গভর্নর হিসেবে শপথ নেন পররাষ্ট্র সচিব রাধা কৃষ্ণ মাথুর।

জম্মু-কাশ্মির বিভক্ত হওয়ায় এখন ভারতের রাজ্যের সংখ্যা ২৮টি। অপরদিকে কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হচ্ছে ৯টি। লাদাখ সরাসরি কেন্দ্রীয় সরকারের অধীনে লে. গভর্নর দ্বারা পরিচালিত হবে।

বিজনেস আওয়ার/৩১ অক্টোবর, ২০১৯/এ

উপরে