করোনাভাইরাস লাইভ আপডেট
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
১৬৪
৩৩
১৭
সূত্র:আইইডিসিআর
বিশ্বজুড়ে
দেশ
আক্রান্ত
মৃত্যু
২১১
১৩,৪৯,৮৭৭
৭৪,৮২০
সূত্র: জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি ও অন্যান্য।

ঢাকা, বুধবার, ৮ এপ্রিল ২০২০, ২৫ চৈত্র ১৪২৬


আমরা কেন স্বপ্ন দেখি? মেডিকেলীয় ব্যাখ্যা

০৩:৪৬পিএম, ১৭ নভেম্বর ২০১৯

বিজনেস আওয়ার ডেস্কঃ অনেক বন্ধুবান্ধব আছেন যারা প্রায়ই অভিযোগ করেন, 'তারা স্বপ্ন দেখেন না'। আসলে ব্যাপারটা তেমন নয়। তারা স্বপ্ন দেখেন, কিন্তু ভুলে যান, বা মনে করতে পারেন না। স্বপ্ন আসলে কী?

স্বপ্ন তেমন কিছুই নয়। স্বপ্ন, অবচেতন মনের প্রযোজনায় 'বর্তমান', 'নিকট অতীত' ও 'দূর অতীতে' ঘটে যাওয়া ঘটনা ও তার অভিজ্ঞতার আলোকে নির্মিত একটি 'ছোট নাটিকা' বা 'সেগমেন্ট' বলা চলে।

স্বপ্নের কিছু চাঞ্চল্যকর বৈশিষ্ট্য আছে। আমরা বেশিরভাগ স্বপ্ন দেখি রেপিড আই মুভমেন্ট (REM- SLEEP) স্লিপ পর্বে। রেপিড আই মুভমেন্ট স্লিপ কী?

আমাদের ঘুমের দুটি স্তর। 'চক্ষু আন্দোলন' পর্ব (রেপিড আই মুভমেন্ট -REM) এবং চক্ষু স্থীর পর্ব (NON REM)। ঘুমের মধ্যে আমাদের চোখ দুটো কখনো আন্দোলিত বা কাঁপতে থাকে আবার কখনো স্থির থাকে। তাই ঘুমের এমন নাম। বেশিরভাগ স্বপ্ন আমরা দেখি চক্ষু আন্দোলন পর্ব ঘুমের সময়। আর ঘুম থেকে জেগে উঠার অল্প সময়ের মধ্যে আমরা সিংহভাগ স্বপ্নই ভুলে যাই। কী স্বপ্ন দেখলাম হুবহু মনে করতে পারি না, এটা স্বাভাবিক ঘটনা।

স্বপ্নের মধ্যে ব্রেইন নতুন করে কারো কোন ইমেজ অবয়ব বা চেহারা তৈরি করতে পারে না। সে ক্ষমতা ব্রেইনের নেই। অতীতে দেখা চেহারা অবয়বেই প্রিয়জনকে দেখি। অনেক আগে যারা মা,বাবাকে হারিয়েছেন তারা তাদের মা বাবা কে ঠিক সেই অবয়বেই দেখেন, যখন তারা মারা গিয়েছিলেন।

অন্ধ মানুষ স্বপ্ন দেখেন?

হ্যাঁ, অন্ধ মানুষও স্বপ্ন দেখেন। এমনকি যারা জন্মান্ধ তারাও স্বপ্ন দেখেন। তবে তাদের সে স্বপ্নে কারো চেহারা বা ছবি থাকে না। আর যারা জন্মের অনেক পর দৃষ্টিশক্তি হারান তাদের স্বপ্নগুলোও আমাদের মতনই। আমার দৃষ্টিশক্তিহীন রোগী ও এমন। তিনি তার মা বাবা ভাইবোন কে সেই চল্লিশ বছর আগেকার অবয়বে দেখেন।

কাদের আমরা স্বপ্নে দেখি?

স্বপ্নে আমরা পরিচিত মানুষগুলোকেই দেখি। দেখি পরিচিত চেহারায়। দৈবাৎ কেউ স্বপ্নে যদি দেখেন পাশে শুয়ে থাকা 'স্বামী বা স্ত্রী' থুরথুরে বুড়ো হয়ে গেছেন, আপনার সঙ্গে ঝগড়া করছেন, আসলে সেটা ব্রেইনের একটা ছোট ভুল। সে মেমোরি সেন্টার থেকে দৃশ্যগুলো/ অবয়বগুলো এনে জোড়া দিতে গিয়ে তাড়াহুড়োয় একজনের অবয়বের মধ্যে আরেকজনের অবয়ব লেপ্টে দিয়েছে বে-খেয়ালে।

আবার এও হতে পারে বয়স্ক অবয়ব হিসেবে ব্রেইন যাকে প্রিয়জন বলে উপস্থাপন করেছে, সেই অবয়বটা আমাদের দূর অতীতে দেখা কেউ, যা ব্রেইনের মেমোরি সেন্টারে সযত্নে তুলে রাখা ছিল। ব্রেইন 'মেমোরি' থেকেই তা তুলে এনেছে। মনে করতে পারছেন, ঠিক কে সে। তবে ভালো করলে মনে করার চেষ্টা করলে পরে হয়তো সেই বয়স্ক অবয়বের আসল মানুষকে খুঁজে বের করা যাবে।

আমাদের বেশিরভাগ স্বপ্ন লাল, নীল-বর্ণীল। ১৯৫০ সালের আগে বিজ্ঞানীরা বেশিরভাগ স্বপ্ন ধরে নিতেন সাদাকালো। ষাটের দশক থেকে সে ধারণা পালটে যেতে শুরু কিরে। এর একটা কারণ হতে পারে ষাটের দশকের পর থেকে টিভি সিনেমায় -নাটক চলচ্চিত্রে সাদাকালো পরিবর্তে রঙিন ছবির ঝলমল দৃশ্যের অবতারনা।

স্বপ্নে বিপরীত বিষয়ই আমরা বেশি দেখি। যেমন পরীক্ষায় ফেল দিয়েছি। লিখতে পারছি না, কমন পড়েনি বা পরীক্ষক খাতা টেনে নিয়ে গিয়েছেন। কিংবা ভালোবাসার মানুষ অন্যের হাত ধরে টা-টা বাই-বাই বলে চলে যাচ্ছে। আপনি তার পেছনে পেছনে 'নাইট রাইডার' হয়ে 'না -যেও না...' বলে দৌড়াচ্ছেন, কিন্তু পারছেন না, আপনার পা মাটিতে লেপ্টে যাচ্ছে।

অথবা স্বপ্নে দেখছেন বাঘ ভাল্লুক আপনাকে তাড়া করছে আপনি হাউমাউ করে কাঁদছেন, চেঁচামেচি মরছেন, কিন্তু পা চলছে না। বাঘ এসে ঘাড়টা যেনো মটকিয়ে চলে গেল। এক পেশেন্ট দেখেছিলাম, সে স্বপ্নে প্রায়ই দেখতো বাঘ বা ভাল্লুককে থাপড়াচ্ছে।

অথচ বাস্তবে সব থাপ্পড় যেতো পাশে শুয়ে থাকা বউয়ের নাক মুখে। এ নিয়ে তাদের সংসার যায় যায়।

পশুপাখিও স্বপ্ন দেখে। আপনার প্রিয় বিড়ালটি ঘুমিয়ে থাকলে দেখবেন তার চোখ নাড়াচাড়া করছে কিংবা কানটা নড়ছে। আসলে সেটা তার স্বপ্ন।

বাহ্যিক শব্দ বা পরিবেশ আমাদের স্বপ্নকে প্রভাবিত করে।

যেমন ধরুন আপনার ছোটভাই পাশের রুমে গিটার বাজাচ্ছে, আর আপনি স্বপ্নে দেখছেন, আছেন কোন এক লাইভ কনসার্টে, হাতে গিটার আদতে কোল বালিশ।

কিংবা হয়তো আপনি স্বপ্নে দেখছেন আপনি 'আইএসআইএস' যোগ দিয়ে ইসরাইলি বাহিনীর হয়ে মুহুর্মুহু মিসাইল ছুঁড়ছেন মিসরে বা সিরিয়ার মরুভূমিতে। আদতে সেটা সে রাতের 'শিলাবৃষ্টি'র শব্দ, যা আপনার টিনের চালকে প্রায় ফুটো করে দিচ্ছিলো।

তরুণ- তরুণীরা প্রায়ই স্বপ্নে দেখেন তারা তাদের প্রিয় নায়ক বা নায়িকাদের সঙ্গে গালগল্প সেরে নিচ্ছেন নিরালায় কিংবা কোন শত্রুর সঙ্গে গলাগলি করছেন। বাস্তবে সেটা জড়িয়ে ধরা তোশক বা কোল বালিশ।

স্বপ্নের মধ্যে আমাদের হাত পা অবশ থাকে, নাড়াতে পারি না। তাই আমরা স্বপ্নে প্রায়ই দৌড়াতে বা হাটতে দেখতে পারি না।

পুরুষদের স্বপ্নে বেশিরভাগ চরিত্রই থাকে পুরুষ, নারী চরিত্র থাকে কম। কিন্তু নারীদের স্বপ্নে নারী-পুরুষের আনুপাতিক হার ফিফটি-ফিফটি। আর পুরুষদের স্বপ্ন একটু ভয়ানক হয়, নারীদের তেমন একটা নয়।

স্বপ্ন যেহেতু আপনার বর্তমান অতীত অভিজ্ঞতা, আপনার চিন্তা-চেতনা, আশা আকাঙ্ক্ষার প্রতিচ্ছবি তাই স্বপ্নকে খুব একটা সিরিয়াসলি নেবার প্রয়োজন আছে বলে মনে করি না।

বিজনেস আওয়ার/১৭ নভেম্বর, ২০১৯/আরআই

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে