businesshour24.com

ঢাকা, শনিবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২০, ৫ মাঘ ১৪২৬


'কাজে আগ্রহ নেই পেট্রোবাংলা-বাপেক্সের কর্মকর্তাদের'

০৭:৫৬পিএম, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ পেট্রোবাংলা ও বাপেক্সের কাজে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বিপু।

রবিবার (১৫ নভেম্বর) রাজধানীর কাওরান বাজারে বাপেক্স ভবনে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, ‘এই দুই সংস্থার বেশিরভাগ কর্মকর্তাই কাজে আগ্রহ দেখান না। সংস্থা থেকে বের হয়ে যওয়ার পর তারা নানারকম উদ্ভাবনের কথা বলেন। এর কারণ খুঁজে বের করা দরকার।’

অনুষ্ঠানে ‘জিওলজিক্যাল ফিল্ড সার্ভে ফর হাইড্রো কার্বন এক্সপ্লোরেশন ইন বাংলাদেশ: প্রোগ্রেস অ্যান্ড চ্যালেঞ্জেস’ এবং ‘ড্রাই অ্যাবেন্ডেন্ট অ্যান্ড সাসপেন্ডেন্ট ওয়েলস অব বাংলাদেশ অ্যান্ড রি ভিজিট ফর ফারদার এক্সপ্লোরেশন’ শীর্ষক দুটি ম্যানুয়ালের মোড়ক উন্মোচন করা হয়। ম্যানুয়াল দুটি উপস্থাপন করেন বাপেক্সের মহাব্যবস্থাপক অহিদুল ইসলাম ও আলমগীর হোসেন।

অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘বাপেক্সকে আমরা কাজ দিচ্ছি না—এমন প্রশ্ন তোলেন অনেকে। আসলে আমরা তো বাপেক্সকে পুরো বাংলাদেশ দিয়ে রেখেছি। কিন্তু, তাদের কাজের গতি কম। গতি বাড়িয়ে আগামী দিনের চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করতে হবে।’

নসরুল হামিদ বলেন, ‘যতবারই তাদের জিজ্ঞেস করা হয় কাজ করছেন না কেন, ততবারই তারা বলেন, হ্যাঁ স্যার প্রস্তুতি নিচ্ছি। কিন্তু প্রস্তুতি আর শেষ হয় না, কাজও হয় না।’ তিনি বলেন, ‘স্ব-স্ব ক্ষেত্রে লিডারশিপ থাকতে হবে। আপনাদের জনবল আছে, তাদের কাজে লাগাতে হবে। এটাই আপনাদের চ্যালেঞ্জ। না হলে আমরা বাইরে থেকে যত চেষ্টাই করি না কেন, সম্ভাবনাময় কাজ দেখতে পাবো না।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘আগে বাপেক্স অনেক বড় বড় কাজ করেছে। কিন্তু, এখনকার অবস্থা ভালো না। এভাবে চলতে দেওয়া যায় না। পেট্রোবাংলার অবস্থাও একই। ফলপ্রসূ কোনও ভূমিকা তো দেখি না তাদের।’

বাপেক্স ও পেট্রোবাংলার কর্মকর্তাদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনাদের অক্ষমতার দায় নেবে না সরকার। আমরা আপনাদের কাজের মূল্যায়ন করবো। করতে না পারলে কাজ বিদেশি কোম্পানির হাতে যাবে।’

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ‘অনশোরে ( স্থলভাগে) আমরা গ্যাসের অনুসন্ধান বাড়াতে চাই। পেট্রোবাংলার কাজ হচ্ছে বাপেক্সকে অত্যাধুনিক পদ্ধতি ও কাজের বিষয়ে পরামর্শ দেওয়া। কিন্তু, কাজ তো বাপেক্সকেই করতে হবে। চুপচাপ বসে থাকলে তো চলবে না। প্রতিবছর গ্যাসের চাহিদা বাড়ছে। এই চাহিদা পূরণে বাধ্য হয়ে বিদেশ থেকে বেশি দামে গ্যাস আনছি। বিদেশ থেকে বেশি দামে গ্যাস আনার চেয়ে নিজেদের গ্যাস ব্যবহার করতে অনুসন্ধান জরুরি।’

বিজনেস আওয়ার/১৫ ডিসেম্বর, ২০১৯/আরআই

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে