ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৩ ফাল্গুন ১৪২৬


সাড়ে ৪ বছর আগের অবস্থানে ডিএসইএক্স

০৩:২৬পিএম, ১৩ জানুয়ারি ২০২০

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : সোমবার (১৩ জানুয়ারি) মৌলভিত্তি সম্পন্ন কোম্পানির দর পতনে দেশের শেয়ারবাজারে ধস নেমেছে। এছাড়া ব্যবস্থাপনা পরিচালক হিসাবে কাজী সানাউল হককে নিয়োগে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পর্ষদের বিভক্তিতে আস্থার সংকটও ধসের একটি কারন হয়ে দাড়িঁয়েছে। যা সামগ্রিকভাবে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) প্রধান মূল্যসূচক ডিএসইএক্সকে বিগত সাড়ে ৪ বছরেরও বেশি আগের সময়ে নিয়ে গেছে।

জানা গেছে, আজ ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ৮৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ৪১২৩ পয়েন্টে। যা ৪ বছর ৮ মাস অর্থাৎ ৫৬ মাসের মধ্যে সর্বনিম্ন। এর আগে ২০১৫ সালের ৭ মে আজকের চেয়ে নিম্নে অবস্থান করছিল ডিএসইর ডিএসইএক্স সূচকটি। ওই দিন ডিএসইর ডিএসইএক্স ৪১২২ পয়েন্টে অবস্থান করছিল।

এদিন শেয়ারবাজারের পতনে সবচেয়ে বেশি ভূমিকা রেখেছে গ্রামীণফোন। এ কোম্পানির দর পতনে সূচক কমেছে ২৫ পয়েন্ট। এর পরের অবস্থানে থাকা বৃটিশ আমেরিকান ট্যোবাকোর কারনে সূচক কমেছে ৮ পয়েন্ট, স্কয়ার ফার্মার কারনে ৫ পয়েন্ট, আইসিবির কারনে ৩ পয়েন্ট ও বার্জার পেইন্টস বাংলাদেশ এর কারনে ৩ পয়েন্ট পড়েছে।

অন্যদিকে আইসিবির সাবেক ‘বিতর্কিত’ ব্যবস্থাপনা পরিচালক কাজী সানাউল হককে এমডি নিয়োগ নিয়ে ডিএসইর পর্ষদের বিভক্তিতে শেয়ারবাজারে অনাস্থার তৈরী হয়েছে। যা শেয়ারবাজারে নেতিবাচক ভূমিকা পালন করছে।

সোমবার ডিএসইর অপর সূচকগুলোর মধ্যে শরিয়াহ সূচক ২০ পয়েন্ট ও ডিএসই-৩০ সূচক ২৮ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে যথাক্রমে ৯৩০ ও ১৩৮৮ পয়েন্টে। ডিএসইর চালু হওয়া নতুন সূচক সিডিএসইটি ১৫ পয়েন্ট কমে ৮৩৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে।

ডিএসইতে আজ টাকার পরিমাণে লেনদেন হয়েছে ২৮৬ কোটি ৭৮ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট। যা আগের দিন থেকে ২৫ কোটি ৯৬ লাখ টাকা বেশি। আগের দিন লেনদেন হয়েছিল ২৬০ কোটি ৮২ লাখ টাকার।

ডিএসইতে আজ ৩৫৪টি প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে। এসব প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মাত্র ২১টির বা ৫.৯৩ শতাংশের শেয়ার ও ইউনিট দর বেড়েছে। দর কমেছে ৩১৩টির বা ৮৮.৪২ শতাংশের এবং ২০টি বা ৫.৬৫ শতাংশ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর অপরিবর্তিত রয়েছে।

টাকার অংকে ডিএসইতে সবচেয়ে বেশি লেনদেন হয়েছে লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশের। এদিন কোম্পানিটির ১৯ কোটি ৩ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেন হয়েছে। লেনদেনে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসা এডিএন টেলিকমের ১০ কোটি ৮২ লাখ টাকার এবং ৯ কোটি ৯৪ লাখ টাকার শেয়ার লেনদেনের মাধ্যমে তৃতীয় স্থানে উঠে আসে রিং সাইন টেক্সটাইল।

ডিএসইর টপটেন লেনদেনে উঠে আসা অন্য কোম্পানিগুলোর মধ্যে রয়েছে : খুলনা পাওয়ার, বিকন ফার্মাসিউটিক্যালস, ওয়েস্টার্ন মেরিন, নর্দার্ণ জুট, স্ট্যান্ডার্ড সিরামিক, গ্রামীণফোন ও এসএস স্টিল।

অপর শেয়ারবাজার চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জের (সিএসই) সার্বিক সূচক সিএএসপিআই এদিন ২৩৯ পয়েন্ট কমে দাঁড়িয়েছে ১২ হাজার ৫৭০ পয়েন্টে। এদিন সিএসইতে হাত বদল হওয়া ২৫২টি প্রতিষ্ঠানের মধ্যে শেয়ার দর বেড়েছে ২৮টির, কমেছে ২০৬টির এবং অপরিবর্তিত রয়েছে ১৮টির দর। আজ সিএসইতে ১৩ কোটি ৩৫ লাখ টাকার শেয়ার ও ইউনিট লেনদেন হয়েছে।

বিজনেস আওয়ার/১৩ জানুয়ারি, ২০২০/এস

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

বিশেষ ফান্ডের সুবাতাস শেয়ারবাজারে
ডিএসইতে বাজার মূলধন বেড়েছে ১২ হাজার কোটি টাকা

উপরে