ঢাকা, শুক্রবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৬ ফাল্গুন ১৪২৬


শেষ ম্যাচে টাইগার একাদশে পরিবর্তন আসতে পারে

০৩:০০পিএম, ২৬ জানুয়ারি ২০২০

স্পোর্টস ডেস্ক : পাকিস্তানের বিপক্ষে টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম দুই ম্যাচ হের এখন হোয়াইটওয়াশ হওয়ার আশংকায় ভুগছে বাংলাদেশ দল। সোমবার (২৭ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের তৃতীয় ও শেষ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ। তাই হোয়াইটওয়াস এড়াতে এ ম্যাচে একাদশে বেশ কিছু পরিবর্তন আনছেন কোচ রাসেল ডোমিঙ্গো।

গতকাল দ্বিতীয় টি-টোয়েন্টিতে হারের পর সংবাদ সম্মেলনে দলে পরিবর্তন আনার কথাটা সরাসরি জানিয়েছেন ডোমিঙ্গো। এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা না এলেও কি কি পরিবর্তন আসতে পারে দলে এ নিয়ে বিশ্লেষকরা জানিয়েছেন, সিরিজে চমক হিসেবে দলের সঙ্গে পাকিস্তান উড়ে গেছেন বিপিএলে ঈর্ষণীয় সাফল্য পাওয়া বোলার হাসান মাহমুদ।

গত দুই ম্যাচে সাইডবেঞ্চেই বসে থাকা ছিল তার কাজ। তাই সম্ভবত আগামীকালই অভিষেক ঘটতে যাচ্ছে তার। হাসানকে নিলে বাদ পড়তে হবে ফাস্ট বোলারদের একজনকে। ধারণা করা হচ্ছে, শেষ ম্যাচে কাটার মাস্টার মোস্তাফিজকে বসিয়ে রাখা হবে। কোচ ডোমিঙ্গোর কথায় এমন স্পষ্ট ইঙ্গিত পাওয়া গেলে।

সিরিজে আগের দুই ম্যাচে মোস্তাফিজের পারফরম্যান্সই জানান দিচ্ছে গাদ্দাফিতে তার কাটার কাজ করেনি। 'ডেথ ওভার'-এ এসে প্রচুর খরচে হয়েছেন তিনি। প্রথম ম্যাচে মোস্তাফিজের বোলিং ফিগার ৪-০-৪০-১। পরের ম্যাচে ৩-০-২৯-০। উইকেটই পাননি তিনি। দেশসেরা খ্যাত এ পেসারের তুলনায় শফিউল ও আলআমিন বেশ ভালো করেছেন।

তাই সঙ্গত কারণেই বাদ পড়ার তালিকায় মোস্তাফিজই থাকছেন এটা মোটামুটি নিশ্চিত বলা চলে। এদিকে হাসান মাহমুদ ছাড়াও প্রথম দুই ম্যাচে খেলানো হয়নি আরো এক পেসার রুবেল হোসেন। আগামীকাল হাসান মাহমুদের সঙ্গে বল হাতে রুবেলকেও দেখা যেতে পারে। সে ক্ষেত্রে কম ভালো করা আলআমিনকে বিশ্রাম দিতে পারেন কোচ।

গতকালের ম্যাচে ৩ ওভার করে ১৭ দিয়েও কোনো উইকেট পাননি আলআমিন। ম্যাচে প্রভাব বিস্তার করার মতো তেমন বলই করতে পারেননি এ পেসার।

এ বিষয়ে দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ ডোমিঙ্গো বলেন, সবাইকে সুযোগ দিতে হবে। আমরা ২-০ ব্যবধানে সিরিজে পিছিয়ে। তিন খেলোয়াড় এখনো সুযোগ পায়নি, তারা অবশ্যই দলে আসবে এবং আমরা আরও পরিকল্পনা করব।

কোচের এমন ইঙ্গিতের পর ওপেনার নাজমুল হোসেনেরও কপাল খুলল বলা যায়। গত দুই ম্যাচে সবচেয়ে বেশি ব্যর্থ হয়েছেন ব্যাটসম্যানরা। সেখান থেকে যে কাউকে বসিয়ে রেখে নাজমুল হোসেনকে ব্যাট হাতে নামতে দেখা যেতেই পারে। যে কারণে হাসান মাহমুদকে নেয়ার কথা ভাবা হচ্ছে নাজমুলকেও একই কারণে নেয়া যেতে পারে।

কাল একাদশে ব্যাপক পরিবর্তন আনলে তামিমের ওপেনিংয়ে মোহাম্মদ নাঈমের জায়গায় দেখা যেতে পারে নাজমুলকে। ব্যাটিং অর্ডারে পরিবর্তন ও নতুন সংযুক্তি দেখা গেছে গত দুই ম্যাচে। প্রথম ম্যাচে খেলা মোহাম্মদ মিঠুনকে বসিয়ে মেহেদীকে দলে টেনেছিলেন ডমিঙ্গো।

ওপেনিংয়ে পরিবর্তন না আনলে দ্বিতীয় ম্যাচে তিনে নামা মেহেদীর জায়গায় নাজমুলকে খেলাতে পারেন ডমিঙ্গো। অথবা ওয়ানডাউনে খেলতে পারেন নাঈম। একাদশে কয়েকটি পরিবর্তন এনে কাল ধবলধোলাই এড়াতে দলের সেরা খেলোয়াড়দের নিয়েই নামবেন টাইগাররা।

বিজনেস আওয়ার/২৬ জানুয়ারি, ২০২০/এ

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে