করোনাভাইরাস লাইভ আপডেট
বাংলাদেশ
আক্রান্ত
সুস্থ
মৃত্যু
৭০
৩০
সূত্র:আইইডিসিআর
বিশ্বজুড়ে
দেশ
আক্রান্ত
মৃত্যু
১৮১
১১৩১৭১৩
৬০১১৫
সূত্র: জনস হপকিন্স ইউনিভার্সিটি ও অন্যান্য।

ঢাকা, শনিবার, ৪ এপ্রিল ২০২০, ২১ চৈত্র ১৪২৬


করোনা আতঙ্কে সুপারশপে বিক্রির চাপ

০৯:২১পিএম, ২২ মার্চ ২০২০

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : দেশে নতুন করে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগী পাওয়ায় জনমনে আতঙ্ক যেন কাটছে না। এর প্রভাবে কমে গেছে জনসমাগম, গণপরিবহনে যাত্রী চলাচল। প্রায় শূন্যের কোঠায় চলে এসেছে ফুটপাতে চা পান। অর্ধেকে নেমেছে হোটেল-রেস্টুরেন্টে খাওয়া-দাওয়া।

অন্যদিকে করোনা আতঙ্কে ভোগ্যপণ্য কেনার পরিমাণ বেড়েছে মার্কেটগুলোতে। প্রায় ৩০ শতাংশ বিক্রি বেড়েছে নগরের সুপারশপগুলোতে। অনেক পণ্য স্টক আউটের ঘটনাও ঘটেছে। তবে এর কয়েক ঘণ্টার ভেতরে আবারও রিলিফ করতে সক্ষম হয়েছে তারা।

রোববার (২২ মার্চ) রাজধানীর মিরপুর, মগবাজার, রামপুরা, খিলগাঁও, সেগুনবাগিচা, শান্তিনগর এলাকার সুপারশপের বিক্রয়কর্মীদের সঙ্গে কথা বলে এসব চিত্র উঠে এসেছে।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, ভোক্তারা নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের কেনাকাটা চাহিদার তুলনায় অনেক বেশি করছেন। তাদের কেনাকাটা চাহিদার তুলনায় বেশি হাওয়ায় হিমশিম খেতে হয় বিক্রয়কর্মীদের। তারা বলছেন, অন্য সময়ের তুলনায় ৩০ শতাংশ বেড়েছে কেনাকাটা।

অপরদিকে খোলা বাজার কিংবা পাড়া-মহল্লার মুদি দোকানগুলোতে নিত্যপণ্য বিক্রি বেড়েছে চাহিদার দুই গুণ। এসব মুদি দোকানে পণ্যের দামও বেশি রাখা হচ্ছে। দোকান কিংবা সুপারশপগুলোয় ক্রেতারা সবচেয়ে বেশি কিনছেন চাল, ডাল, আটা, ময়দা, ভোজ্যতেল, মাছ, মাংস, পেঁয়াজ, রসুন, সাবান, হ্যান্ডওয়াশ ইত্যাদি।

খোলা বাজারে বিক্রির সঙ্গে দাম বাড়লেও সুপারশপে দাম রাখা হচ্ছে আগের মতোই। কোনো পণ্যের স্টক ফুরিয়ে এলে দুই-এক ঘণ্টার মধ্যে আবার রিলিফ দেওয়া হচ্ছে। এসব শপে সবচেয়ে বেশি ভিড় থাকছে বিকেল থেকে রাত পর্যন্ত।

বিজনেস আওয়ার/২২ মার্চ, ২০২০/কমা

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে