ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬


আলোচনায় জায়েদ খান!

০৫:০৯পিএম, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭

বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদকঃ ২০০৮ সালে ‘ভালোবাসা ভালোবাসা’ছবির মাধ্যমে রূপালী পর্দায় পা রাখেন জায়েদ খান। ক্যারিয়ারে প্রেম করবো তোমার সাথে, দাবাং, তোকে ভালোবাসতেই হবে, ভালোবাসা সীমাহীন, নগর মাস্তানসহ অনেক ছবিতে দেখা গেছে তাকে।

দেশীয় প্রেক্ষাগৃহে ভারতীয় ছবির প্রদর্শনের বিরুদ্ধে আন্দোলনে সামনে থেকে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। চলচ্চিত্রের সঙ্গে জড়িত মানুষের প্রয়োজনে সব সময় এগিয়ে যান জায়েদ। নানা কারণে অনেকেই এফডিসির ঘরের ছেলে বলে সম্বোধন করেন এই নায়ককে।

হালের এই ক্রেজ বর্তমানে বাংলাদেশ চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির একজন দক্ষ সাধারণ সম্পাদক হিসেবে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করছেন। সংগঠন চালাতে গিয়ে আলোচনা-সমালোচনা থাকবে এটাই সাভাবিক।

তবে গত ১০ বছরের ক্যারিয়ারে এত বেশি আলোচনায় কখনো দেখা যায়নি ঢাকাই চলচ্চিত্রের এই নায়ককে। ‘অন্তর জ্বালা’ছবিতে অভিনয়ের শুরু থেকেই ব্যাপক আলোচনায় আছেন জায়েদ খান।

আগামীকাল শুক্রবার, ১৫ ডিসেম্বর ছবিটি সারাদেশের ১৭৫টি প্রেক্ষাগৃহে একসাথে মুক্তি পেতে যাচ্ছে। এত সংখ্যক হলে একযোগে কোনো ছবির মুক্তিকে রেকর্ড হিসেবে দেখছেন অনেকেই।

জায়েদ অভিনীত ছবিটির মুক্তি উপলক্ষে বন্ধ হয়ে যাওয়া ১৭টি সিনেমা হল নতুনভাবে চালু হচ্ছে।

এমন কি আছে জায়েদ খানের ‘অন্তর জ্বালা’ছবিতে যার ফলে এতো আলোচনা হচ্ছে?

এ ব্যাপারে হালের সেনসেশন জায়েদ খান বলেন, প্রথমেই আমি দর্শকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। ছবির পোস্টার থেকে শুরু করে টিজার, ট্রেলার তারা পছন্দ করেছেন।

আর এই ছবির নির্মাতা মালেক আফসারি। তিনি সব সময় দর্শকের পছন্দের কথা চিন্তা করে ছবির বানান। অসংখ্য হিট ছবি উপহার দিয়েছেন।

আমাকে তিনি নায়ক না একজন অভিনেতা হিসেবে তুলে ধরেছেন। দর্শকরা সিনেমাটি দেখলে তা বুঝতে পারবেন।

তিনি আরো বলেন, জনপ্রিয় চিত্রনায়ক মান্নার এক ভক্তের গল্প নিয়ে ছবিটি। চরিত্রের সঙ্গে মানিয়ে নেয়ার জন্য তেল মেখে বহুদিন রোদে পুড়েছি গায়ের রঙ কালো করার জন্য। ৩-৪ মাস চুল ও দাড়ি কাটি নাই।

এক কথায় অনেক কষ্ট করেছি। চেষ্টা ছিল দর্শকদের একটা ভালো ছবি উপহার দিতে। বাকিটা দর্শকরা বিচার করবেন।

এদিকে ছবির একটি গানের বিরুদ্ধে নকলের অভিযোগ উঠেছে। ছবিটি নকল বলেও গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে। এ নিয়ে অনেকবারই কথা বলেছেন নির্মাতা মালেক আফসারি।

তিনি বলেন, আপনি একটি ভালো উপন্যাস পড়লে নিশ্চয়ই বন্ধুদের পড়তে দেবেন। আমিও একটি ভালো সিনেমা দেখলে বন্ধুদের দেখার সুযোগ করে দেই।

মানুষের জীবনের গল্প নকল হয় না। সব চোখের পানি দেখতে একি রকম। ব্যথাটা আলাদা। তবে আমার ‘অন্তর জ্বালা’আলাদা।


বিজনেস আওয়ার / ১৪ ডিসেম্বর / এমএএস

এই বিভাগের অন্যান্য খবর

উপরে