বিজনেস আওয়ার প্রতিবেদক : কোনোভাবেই নিয়ন্ত্রণ করা যাচ্ছে না পেঁয়াজের বাজার। নানামুখী উদ্যোগের পর পেঁয়াজের দাম কিছুটা কমলেও ফের বাড়তে শুরু করেছে। দেশের বিভিন্ন স্থানে খুচরা বাজারে এক সপ্তাহের ব্যবধানে কেজিতে বেড়েছে ১০ থেকে ৩০ টাকা। এতে নাভিশ্বাস ক্রেতাদের।

এ অবস্থায় সরবরাহ বাড়ানো ছাড়া দাম কমানোর বিকল্প দেখছে না বাণিজ্য মন্ত্রণালয়। সরবরাহ বাড়ানোর জন্য আমদানির ওপর জোর দিচ্ছে সরকার।

কিন্তু এ ক্ষেত্রে সমস্যা হলো—সরকারিভাবে পেঁয়াজ বিক্রির একমাত্র প্রতিষ্ঠান ট্রেডিং করপোরেশন অব বাংলাদেশ (টিসিবি) আইনি জটিলতার কারণে কোনও পণ্য আমদানি করতে পারে না। বেসরকারি উদ্যোগে আমদানি করতে গেলে ব্যবসায়ীদের সুবিধা দিতে হবে।

কিন্তু কী সুবিধা তারা চাইবেন বা সরকার তাদের কী সুবিধা দেবে, তা আলোচনা করে ঠিক করতে হবে। এজন্য প্রয়োজন হবে সরকারের ওপর মহলের সিদ্ধান্ত। বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের একাধিক কর্মকর্তার সঙ্গে কথা বলে এসব তথ্য জানা গেছে।

মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, এই মুহূর্তে বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি রয়েছেন লন্ডনে। বাণিজ্যমন্ত্রীর অনুপস্থিতিতে পেঁয়াজ আমদানির লক্ষ্যে নানামুখী উদ্যোগের চিন্তাভাবনা করলেও চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারছে না মন্ত্রণালয়।

বিষয়টি নিয়ে রবিবার (১২ অক্টোবর) মন্ত্রণালয়ের শীর্ষ কর্মকর্তাদের সঙ্গে কয়েক দফায় বৈঠক করলেও কোনও সিদ্ধান্ত দেননি বাণিজ্য সচিব ড. জাফর উদ্দিন।

সোমবার (১৪ অক্টোবর) মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠকের এক পর্যায়ে অনির্ধারিত আলোচনায় বিষয়টি তুলে পরবর্তী করণীয় নির্ধারণে প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশ চাইবেন বাণিজ্য সচিব।

উল্লেখ্য, ভারত সরকার গত ১৩ সেপ্টেম্বর থেকে ২৫০ ডলারের প্রতিটন পেঁয়াজের মূল্য নির্ধারণ করে দেয় ৮৫২ ডলার। এই ঘোষণার ২৪ ঘণ্টা না যেতেই দেশে পেঁয়াজের বাজারে অস্থিরতা দেখা দেয়।

৫০ টাকা কেজি দরের পেঁয়াজ বিক্রি হতে থাকে ৮৫ টাকা দরে। পরবর্তী সময়ে কোনও পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই গত ২৯ সেপ্টেম্বর ভারত পেঁয়াজ রফতানি পুরোপুরি বন্ধ করার ঘোষণা দেয়।

এই ঘোষণার ১২ ঘণ্টার ব্যবধানে ৮৫ টাকা কেজি দরে বিক্রি হওয়া পেঁয়াজের মূল্য কোথাও ১০০, কোথাও ১১০ আবার কোথাও ১২০ থেকে ১৩০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হতে শুরু করে।

এ সময় দেশে পেঁয়াজ নিয়ে অস্থিরতা চরম আকার ধারণ করে। এমন পরিস্থিতিতে দেশে উৎপাদিত পেঁয়াজের সরবরাহ বাড়ানোর উদ্যোগ নেয় সরকার।

বাজার ঘুরে দেখা যায়, কেজিপ্রতি পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে ৮৫ থে‌কে ৯০ টাকা দ‌রে। যদিও দু’দিন আগে ছিল ৭০ থে‌কে ৭৫ টাকা। একইভাবে পাইকারি বাজারেও কেজিপ্রতি বেড়েছে ১০ থেকে ১৫ টাকা।

ক্রেতাদের অভিযোগ, বাজার নিয়ন্ত্রণে কোনো কার্যকর পদক্ষেপ না থাকায় প্রতিদিনই বাড়ছে পেঁয়াজের দাম। তবে আমদানি বাড়লে দাম কমার আশা জানান পেঁয়াজ ব্যবসায়ী মা‌লিক স‌মি‌তির সাধারণ সম্পাদক মো. দুলাল মোল্লা।

পেঁয়াজের দাম বেড়েই চলেছে সিলেটের বাজারেও। রোববার পাইকারি ও খুচরা বাজারে কেজিপ্রতি পেঁয়াজ বিক্রি হয় ৯০ ও ৯৫ টাকায়। অথচ দু’দিন আগেও বিক্রি হয়েছে ৬০ থেকে ৬৫ টাকায়। এতে ক্ষুব্ধ ক্রেতারা।

একই চিত্র রংপুরেও। গত তিনদিনে ১০ টাকা করে বৃদ্ধি পেয়ে পেঁয়াজের কেজি পাইকারি বাজারে ৯০ টাকা। খুচরা বাজারে ঠেকেছে একশোতে। আর পাড়া-মহল্লার মুদির দোকানগুলোতে বিক্রি হচ্ছে আরও বেশিতে।

বিজনেস আওয়ার/১৪ অক্টোবর, ২০১৯/এ