স্পোর্টস ডেস্কঃ তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথম ম্যাচে জিতে উড়তে থাকা বাংলাদেশকে মাটিতে নামালো ভারত। দিল্লিতে অনুষ্ঠেয় প্রথম ম্যাচে স্বাগতিকদের ৭ উইকেটে হারিয়েছিল সফরকারীরা।

আজ সেই হারের হিসেব কড়ায়-গণ্ডায় বুঝিয়ে দিল রোহিত শর্মার দল। রাজকোটের সৌরাষ্ট্র ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রণ জানায় ভারত।

ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার লিটন দাস ও নাঈম শেখের ব্যাটে রান আসতে থাকে দ্রুতই। পাওয়ার-প্লের ৬ ওভারে আসে বিনা উইকেটে ৫৬ রান।

যদিও লিটন দাস দুইবার জীবন পেয়েও সেটার সদ্ব্যবহার করতে পারেননি। ২১ বলে ২৯ রান করে বিদায় নেন রান আউট হয়ে।
নাঈম শেখের ব্যাটে আসে ৩৬ রান। এটাই বাংলাদেশের ইনিংসে ব্যক্তিগত সর্বোচ্চ। এছাড়া সৌম্য সরকার ৩০ ও মাহমুদউল্লাহ করেন ৩০ রান।

কিন্তু শেষে দিকে ব্যাটিং ব্যর্থতায় ২০ ওভারে বাংলাদেশের সংগ্রহ হয় ৬ উইকেটে ১৫৩ রান।

ভারতের হয়ে ২ উইকেট নেন চাহাল। এছাড়া ১টি করে উইকেট নেন চাহার, খলিল আহমেদ ও ওয়াশিংটন।

১৫৪ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে দুই ওপেনার রোহিত শর্মা আর শিখর ধাওয়ান মিলেই বাংলাদেশকে ছিটকে দেয় ম্যাচ থেকে। এই দু’জনের জুটি থেকে আসে ১০ ওভার ৫ বলে ১১৮ রান।

ধাওয়ান আমিনুল ইসলাম বিপ্লবের বলে বোল্ড হয়ে ফিরলেও রোহিত তার ১০০তম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে প্রায় শতক ছুঁয়েই ফেলছিলেন। কিন্তু আমিনুলের ঘূর্ণিতে পেরে উঠতে পারেননি শেষ পর্যন্ত। ৪৩ বলে ৮৫ রানের ইনিংস খেলে সাজঘরে ফেরেন দলীয় ১২৫ রানের মাথায়।

শেষদিকে শ্রেয়াস আয়ারের ২৩ ও লোকেশ রাহুলের ৮ রানে ভর করে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে লক্ষ্যে পৌঁছে যায় ভারত। ৮ উইকেট ও ২৬ বল হাতে রেখে সিরিজ সমতায় ফেরালো স্বাগতিকরা।

বিজনেস আওয়ার/৭ নভেম্বর, ২০১৯/আরআই