বিজনেস আওয়ার (চুয়াডাঙ্গা প্রতিনিধি) : বিজনেস আওয়ারে নিউজ প্রকাশের পর শোকজ করা হলো জুতা পায়ে শহীদ মিনারে ওঠে বার্ষিক পরীক্ষার ফল ঘোষণা করা গিরিশনগর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নূর মোহাম্মদ ও ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হায়দার আলী মল্লিককে।

তবে স্কুলের প্রধান শিক্ষক নুর মোহাম্মদ ঘটনার জন্য ভুল স্বীকার করে জাতির কাছে ক্ষমা চাইলেও বরাবরের মতই দাম্ভিকতার সাথে বিষয়টি অস্বীকার করেন ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি হায়দার আলী মল্লিক। তিনি প্রতিনিধিকে জানান শহীদ মিনারে আমি উঠেছিলাম বার্ষিক পরীক্ষার ফলাফল ঘোষণা করার জন্য, তবে আমার পায়ে কোন জুতা ছিল না আপনি ভাল করে খেয়াল করুন। কেউ ইন্টারনেটর মাধ্যমে কারসাজি করে আমার পায়ে জুতা পড়িয়ে দিয়েছে।

তবে প্রধান শিক্ষকের ভুল স্বীকার করে জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া এবং সভাপতির দাম্ভিকতা করে বিষয়টা অস্বীকার করা এলাকার জনগণের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করেছে। অনেকেই অভিযোগ করে প্রতিনিধিকে বলেন প্রধান শিক্ষক যখন তার ভুল বুঝতে পেরে ক্ষমা স্বীকার করে, তখন একইসাথে জুতা পায়ে শহীদ মিনারে উঠে তিনি কেন এত বড় মিথ্যা কথা বলার সাহস পান। তিনি জুতা পায়ে ওঠে এক অপরাধতো করেছেনই আবার অস্বীকার করে আরোঅপরাধ করেছেন। এলাকাবাসী অভিযোগ করে আরো বলেন মুখে দাঁড়ি নিয়ে মাথায় টুপি পরে এত বড় মিথ্যা কথা তিনি কি করে বলেন?

তবে বিজনেস আওয়ারে নিউজ প্রকাশের পর থেকেই বিভিন্ন অনলাইন, প্রিন্ট এবং স্যাটেলাইট চ্যানেলগুলো বিষয়টি খুব বড় আকারে ফলোআপ করে। যার ফলে বিষয়টি জেলা প্রশাসনকে ও নাড়া দেয়।

এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক নজরুল ইসলাম সরকারের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, তাদেরকে শোকজের কাগজ পৌঁছে দেওয়া হয়েছে এবং তিন কার্যদিবসের ভিতরে কারণ দর্শাতে বলা হয়েছে। রিপোর্ট পাওয়ার পর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি জানান।

বিজনেস আওয়ার/৩ জানুয়ারি,২০২০/আরআই